মুসলিম উম্মাহ

মুসলিম কারাবন্দীদের পক্ষে কে দাঁড়াবে? 
guantanamo-inmates-kneel--008 শাইখ মুহাম্মদ আবদুল্লাহ আল হাবদান, সৌদি আরবে রিয়াদের আল ইজ্জ বিন আব্দুস সালাম মসজিদের ইমাম, তিনি জুমার খুতবায় এই বক্তব্যটি প্রদান করেন, সেদিন ছিল ১৬ আগস্ট ২০০২ সাল ১৪২৩ হিজরী।খুতবার শিরোনাম ছিল, “মুসলিম কারাবন্দীদের পক্ষে কে দাঁড়াবে?”
এটি ছিল এক অসাধারণ খুতবা, আশা করা যায় সেদিন যারা উপস্থিত থেকে সরাসরি খুতবাটি শুনেনি তারাও এর লিখিত রূপ থেকে উপকৃত হতে পারবেন, বিশেষতঃ যখন মুসলিম কারাবন্দীদের এই বিষয়টি সম্পর্কে অধিকাংশ মানুষ বেখবর ও গাফেল হয়ে গেছে, এমনকি অনেক ইসলামিক দায়ীগণও এই বিষয়টিকে উপেক্ষা করে চলছেন। বিস্তারিত পড়ুন
ইরাক যুদ্ধের বিরুদ্ধে মার্কিন সৈনিকের প্রতিবাদী বক্তব্য

hqdefault
আমার নাম মাইক প্রাইসনার। আমি যখন আর্মিতে জয়েন করলাম তখন আমার বয়স আঠার, সময়টা ২০০১ সালের জুন মাস। ২০০৩ এর মার্চ মাসে আমাকে ১৭৩তম এয়ারবোর্ন ব্রিগেড এর হয়ে উত্তর ইরাকে যুদ্ধে যোগ দিতে হয়েছিল, এর আগে আমি ১০ম মাউন্টেন ডিভিশন এ যুক্ত ছিলাম।হুম, আসলে…প্রথম যখন আমি সেনাবাহিনীতে যোগ দিলাম, আমাদেরকে শুরুতেই একটি কথা বলা হয়েছিল, আর তা হল… মিলিটারিতে বর্ণবাদ,জাতিবিদ্বেষ ইত্যাদির কোন অস্তিত্ব নেই। বৈষম্য, অসমতা ইত্যাদি অহমিকা যেন আচমকা কেউ এসে উড়িয়ে নিয়ে গেল, এরকম একটা অনুষ্ঠানও হয়েছিল যার নাম ছিল ‘’Equal Opportunity Program’। আর এজন্য আমাদের বাধ্যতামূলক ক্লাসে অংশ গ্রহণ করতে হল, এমনকি প্রতিটি ইউনিটের থেকে একজন EO প্রতিনিধি নিযুক্ত ছিলেন , তার কাজ ছিল এটা নিশ্চিত করা যে, বর্ণবাদ জাতীয় কোন ঝামেলা যেন কেউ সৃষ্টি না করে, যত সামান্য পরিমাণেই হোক না কেন। বর্ণবাদ,জাতিবিদ্বেষ ইত্যাদির কোন আলামত পেলেই, তা জন্মের তরে মিটিয়ে দেয়ার জন্যে আমেরিকান আর্মিকে বেশ নিবেদিত প্রাণ বলেই মনে হল। …এরপর সেপ্টেম্বর ১১ এর ঘটনা ঘটল, বাকিটুকু পড়ুন
মোল্লা মুহাম্মদ ওমর মুজাহিদ এর মোটরসাইকেল – তালিবানদের যেভাবে উত্থান ঘটেছিল
564427_471306839605195_706910429_n১৯৯৪ সালের গ্রীষ্মকাল। মধ্য এশিয়ার একটি দেশে দুজন আরোহী মোটর সাইকেলে করে ছুটে চলেছেন। বাহনটিতে দুজন আরোহী। কিছুদিন আগেই তারা কয়েকজন মিলে একটি আলোড়ন সৃষ্টিকারী ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেছেন।
একটি অন্যায়ের প্রতিবাদ, একটি সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজের নিষেধ।

তিনি কাজটি করার জন্য যাদের সহায়তা পেয়েছিলেন তারা সবাই মাদ্রাসার ছাত্র। সুশীল সমাজের বিশিষ্ট জনদের কর্মব্যস্ততা এতই বেশি যে তাদের ফুসরত নেই মানুষের বিপদাপদে এগিয়ে যাবার। আরো কিছু লোক এগিয়ে এসেছিলেন সেই মোটর সাইকেল আরোহীদ্বের আহবানে সাড়া দিয়ে, তাদের কেউ স্থানীয় ব্যবসায়ী কিংবা স্বচ্ছল কৃষক। তাদের ছোট্ট দলটি গঠিত হয়েছিল মাদ্রাসার শরীয়াহ বিভাগে অধ্যয়নরত ছাত্র, মৌলভী এদের নিয়ে।

গ্রামের লোকদের জন্য সময়টি ছিল উৎসবের। বিয়ের অনুষ্ঠান, বরযাত্রী চলছে দলবেঁধে। কিন্তু যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির হাইওয়েতে কোন নিরাপত্তা নেই, ডাকাত আর চোরের দলের উৎপাত এতটাই বেড়ে গিয়েছে যে, রাস্তার পাশে মরা লাশ পড়ে থাকলেও তা লোকজনের কাছে একটি স্বাভাবিক ঘটনা। এতটাই স্বাভাবিক যে, কেউ গাড়ি থামিয়ে লাশটিকে কবর দেয়া দূরে থাক, পথচারীরা পর্যন্ত দুবার ফিরে তাকানোর প্রয়োজন বোধ করে না।

এহেন পরিস্থিতিতে, যে বিপদের আশংকা ছিল, ঘটলো তাই। বাকিটুকু পড়ুন

মালালার প্রতি পাকিস্তান তালিবান কমাণ্ডারের চিঠি!g9530_malala.inddবিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম ,
মালালা ইউসুফজাই এর প্রতি আদনান রাশিদ
তাদের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক যারা নির্দেশনা মেনে চলে।

মিস মালালা ইউসুফজাই,
আমি আমার ব্যক্তিগত চিন্তাভাবনা থেকে আপনাকে লিখছি, এটা পাকিস্থানের তালিবান বা অন্য কোন জিহাদি দলের মতামত নাও হতে পারে।

আমি সর্বপ্রথম আপনার সম্পর্কে জানতে পারি BBC-উর্দু এর মাধ্যমে, যখন আমি ছিলাম বানু জেলখানায়, তখনো আমি আপনাকে তালেবান বিরুধি কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করে লিখতে চেয়েছিলাম, কিন্তু আপনার ঠিকানা জানা ছিলনা এবং কিভাবে আপনাকে সম্মোধন করবো বুজতে পারছিলাম না, আপনার প্রতি আমার সব আবেগ ভ্রাতৃত্ববোধ থেকে কারন আমরা দুইজনই একই ইউসুফজাই উপজাতিয়।

ইতিমধ্যে জেল ভাঙ্গার ঘটনা ঘটল, এবং আমি পালিয়ে যেতে সক্ষম হই। আমি অনেক আঘাত পেয়েছিলাম যখন শুনলাম আপনার উপর আক্রমন হলো, আমি আফসোস করেছিলাম যে এটা কখনই হতো না যদি আমি আপনাকে আগে বুজাতে পারতাম।

আপনার উপর তালিবানের আক্রমন ইসলামী শরিয়া অনুযায়ী সঠিক কি ভুল ছিল, অথবা আপনার মৃত্যু প্রাপ্য ছিল কিনা আমি এইসব বিতর্কে এখন যাব না, আমরা সর্বশক্তিমান আল্লাহর উপর ছেড়ে দেই – উনিই সবচেয়ে বড় বিচারক।
যদিও এটা অনেক দেরি হয়ে গেছে তবুও এখানে আপনাকে কয়েকটা উপদেশ দিব।

সর্বপ্রথম স্পষ্ট করে বলতে চাই যে, তালিবান কখনই এইজন্য আপনার উপর আক্রমন করে নাই যে আপনি স্কুলে যান অথবা আপনি লেখাপড়া করতে পছন্দ করেন, বাকিটুকু পড়ুন

 

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s